টেকনিক্যাল ইনডিকেটর যার সম্পর্কে প্রত্যেক ট্রেডারের জানা উচিত

টেকনিক্যাল ইনডিকেটর যার সম্পর্কে প্রত্যেক ট্রেডারের জানা উচিত

জ্ঞান থেকে সফলতা আসে - এটা জীবনে বেশীরভাগ জিনিসের ক্ষেত্রে সত্য এবং বিশেষ করে ফরেক্সের ক্ষেত্রে। সফল হতে, ট্রেডারকে টেকনিক্যাল অ্যানালিসিস শিখতে হয়। টেকনিক্যাল ইনডিকেটর হচ্ছে টেকনিক্যাল অ্যানালিসিসের বিশাল একটি অংশ।

সমস্যা হচ্ছে যে, প্রথম দেখাতে, টেকনিক্যাল ইনডিকেটরের নাম অসন্তোষজনকভাবে জটিল মনে হতে পারে, যেমন, ম্যাকডি, আরএসআই, অথবা স্টোকাস্টিক। কিন্তু, আমাদের উপদেশ হবে যে কোন বইকে তার কভার দিয়ে বিচার করবেন না। আমরা আপনাকে সবচেয়ে জনপ্রিয় ইনডিকেটরগুলো সম্পর্কে পরিষ্কার এবং সহজ ব্যাখ্যা দেবো। আমরা এই নিশ্চয়তা প্রদান করতে পারি যে আপনি বুঝতে পারবেন যে সেগুলো কীভাবে ব্যাবহার করতে হয়। আপনি কি আগ্রহী?

cat.jpg

তাহলে আসুন শুরু করি!

ফরেক্স ট্রেডারদের জন্য সেরা টেকনিক্যাল ইনডিকেটর
টেকনিক্যাল ইনডিকেটরকে তাদের উদ্দেশের ভিত্তিতে কয়েক শ্রেণীতে ভাগ করা হয়ে থাকে। যেহেতু ইনডিকেটরের উদ্দেশ্য ভিন্ন হয়ে থাকে, ট্রেডারের একটি নয়, বড়ং ট্রেড ওপেন করতে কয়েকটি ইনডিকেটরের সংযোগের প্রয়োজন হয়। এই আর্টিকেলে, আমরা তিনটি সবচেয়ে জনপ্রিয় ইনডিকেটর সম্পর্কে আপনাদের বলবো।

১. মুভিং এভারেজ - ট্রেন্ড চিনহিতকরনের জন্য একটি ইনডিকেটর

মুভিং এভারেজ (এমএ) হচ্ছে একটি ট্রেন্ড ইনডিকেটর। এটা ট্রেন্ড চিনহিত করতে এবং ট্রেন্ড অনুসরণ করতে সহায়তা করে।
মুভিং এভারেজের সুবিধাসমূহঃ
• ট্রেন্ডের ডায়রেকশন চিনহিত করে;• ট্রেন্ড রিভার্সাল খুঁজে বের করে;• সম্ভাব্য সাপোর্ট এবং রেজিস্ট্যান্স লেভেল দেখায়।
মুভিং এভারেজের অসুবিধাসমূহঃ
• বর্তমান প্রাইসের (প্রাইস চার্টের চেয়ে আস্তে আস্তে মুভ করবে কারন এই ইনডিকেটর পূর্বের প্রাইসের ভিত্তিতে ফর্ম করে) পেছনে ঘোরাফেরা করে।
টিপসঃ
• আমাদের উপদেশ হবে যে সিম্পল মুভিং এভারেজ ব্যাবহার করবেন কারন বেশীরভাগ ট্রেডাররা এই লাইনটি ব্যাবহার করে।• এমএর সবচেয়ে জনপ্রিয় টাইম পিরিয়োড হচ্ছে ২০০, ১০০, ৫০ এবং ২০। ২০০-পিরিয়োডের এমএ আপনাকে লং-টার্মের "হিস্টরিক্যাল" ট্রেন্ড অ্যানালাইজ করতে সহায়তা করতে পারে, আর ২০-পিরিয়োডের এমএ - শর্ট-টার্মের ট্রেন্ড অনুসরন করতে।

কীভাবে ব্যাখ্যা করতে হবে

অল্প কথায়, ট্রেন্ড বুলিশ হবে যখন কারেন্সি পেয়ারের প্রাইস এমএর উপরে থাকবে এবং বিয়ারিশ - যখন প্রাইস নিচে নাম্বে। তারসাথে, লক্ষ্য করবেন যে ভিন্ন ভিন্ন পিরিয়োডের মুভিং এভারেজ একে অপরের প্রতি কীভাবে আচরন করে।
ওপরের দিকের প্রবণতা নিশ্চিত হয় যখন শর্ট-টার্ম এমএ (যেমন ৫০ পিরিয়োড) লং-টার্মের এমএর ওপরে যায় (যেমন ১০০-পিরিয়োড)। আর উলটাভাবে, নিচের দিকের প্রবনতা নিশ্চিত হয় যখন শর্ট-টার্মের এমএ লং-টার্মের এমএর নিচে যায়।

উপসংহার

মুভিং এভারেজ দেখাবে যে কারেন্সি পেয়ার বাই নাকি সেল করতে হবে (আপট্রেন্ডে বাই, ডাউনট্রেন্ডে সেল)। এমএ আপনাকে বলবে না যে কোন লেভেলে আপনার ট্রেড ওপেন করতে হবে (এজন্য আপনার অন্য ইনডিকেটরের প্রয়োজন হবে)। এরফলে, ট্রেন্ড ইনডিকেটর প্রয়োগ করা আপনার টেকনিক্যাল অ্যানালিসিসের প্রথম ধাপ হওয়া উচিত।

MA1.png

২. বলিঞ্জার ব্যান্ডস - ভলাটিলিটি পরিমাপ করার একটি ইনডিকেটর

বলিঞ্জার ব্যান্ডস ভলাটিলিটি পরিমাপ করতে সহায়তা করে (যেমন ট্রেডিং প্রাইসে পরিবর্তনের মাত্রা)।

বলিঞ্জার ব্যান্ডসের সুবিধাসমূহঃ

• এই ইনডিকেটর আসলে সাইডওয়ে মার্কেটের জন্য দারুন কাজ করে (যখন কোন কারেন্সি পেয়ার রেঞ্জের মধ্যে থাকে)। এই ক্ষেত্রে, ইনডিকেটরের লাইনগুলো সাপোর্ট এবং রেজিস্ট্যান্স লেভেল হিসেবে কাজ করতে পারে, যেখানে ট্রেডাররা তাদের পজিশন ওপেন করতে পারে।

বলিঞ্জার ব্যান্ডসের অসুবিধাসমূহঃ

• শক্তিশালী ট্রেন্ডের সময়, প্রাইস বলিঞ্জার ব্যান্ডসের এক লাইনের অভিমুখে দীর্ঘ সময় থাকতে পারে এবং অন্য দিকে না যেতে পারে। এরফলে, ট্রেন্ডিং মার্কেটে আমরা বলিঞ্জার ব্যান্ডসের পরামর্শ দেবো না।

কীভাবে ব্যাখ্যা করতে হবেওপরের ব্যান্ডের যতো কাছাকাছি প্রাইস পৌঁছাবে, কারেন্সি পেয়ার ততোবেশী ওভারবট হবে। সহজে বলতে গেলে, প্রাইসের অগ্রগতি দিয়ে যখন বায়াররা আয় করা সম্পন্ন করে ফেলবে এবং তাদের ট্রেড ক্লোজ করে লাভ নেবে। ফলাফল হবে ওভারবট পেয়ার বাড়া বন্ধ করে দেবে এবং নিচের দিকে ঘুরবে। প্রাইস ওপরের ব্যান্ডের ওপরে যাওয়া সেলের সিগন্যাল দিতে পারে, আর নিচের ব্যান্ডের নিচে যাওয়া - বায়িং সিগন্যাল দিতে পারে।
যখন ভলাটিলিটি বাড়ে তখন বাইরের ব্যান্ডগুলো সম্প্রসারিত হতে থাকে এবং যখন ভলাটিলিটি কমে তখন সংকীর্ণ হয়। উচ্চ এবং কম ভলাটিলিটি পিরিয়োড সাধারনত একে অপরকে অনুসরন করে, তাই ব্যান্ডসের সংকীর্ণ হওয়াটা মানে প্রায়ই ভলাটিলিটি প্রবলভাবে বাড়াকে বোঝায়।

টিপসঃ

• অন্য ইনডিকেটর/টেকিক্যাল ট্যুল থেকে নিশ্চিত না হয়ে আমরা বলিঞ্জার ব্যান্ডস ব্যাবহারের উপদেশ দেবো না। বলিঞ্জার ব্যান্ডস ক্যান্ডেলস্টিক প্যাটার্ন, ট্রেন্ডলাইন এবং অন্যান্য প্রাইস অ্যাকশন সিগন্যালের সাথে ভালোভাবে চলে।

উপসংহার

বলিঞ্জার ব্যান্ডস সবচেয়ে ভালো কাজ করে যখন মার্কেট ট্রেন্ডিং না থাকে। এই ইনডিকেটর ট্রেডিং সিস্টেমের দারুন একটি ভিত্তি স্থাপন করতে পারে, কিন্তু একা এটা পর্যাপ্ত নয়ঃ আপনাকে এরসাথে অন্যান্য ট্যুলও ব্যাবহার করতে হবে।

MA2.png

৩. ম্যাকডি - একটি ইনডিকেটর যা মার্কেটের কালবিভাগ

দেখায়ম্যাকডি (মুভিং এভারেজ কনভারজেন্স/ডাইভারজেন্স) মার্কেটের চালিকার পেছনের শক্তি পরিমাপ করে। এটা দেখায় যে কখন মার্কেট এক ডায়রেকশনে মুভ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে গেছে এবং তার বিরতির (কারেকশন) প্রয়োজন।

কীভাবে ব্যাখ্যা করতে হবে১. চমকপ্রদভাবে ওঠা/নামা। হিস্টোগ্রাম বারগুলো যখন বড় ধরনের অগ্রগতি পরে নামা শুরু করবে তখন সেল। হিস্টোগ্রাম বারগুলো যখন অনেক পতনের পরে ওঠা শুরু করবে তখন বাই।২. হিস্টোগ্রাম এবং সিগন্যাল লাইনের মধ্যের ক্রসওভার মার্কেটে এন্ট্রিকে আরও যথাযথ করে তুলতে পারে। ম্যাকডি-হিস্টোগ্রাম যখন সিগন্যাল লাইনের ওপরে যাবে তখন বাই করবেন। ম্যাকডি-হিস্টোগ্রাম যখন সিগন্যাল লাইনের নিচে নামবে তখন সেল করবেন।৩. শুন্য লাইন হচ্ছে বাড়তি একটি কনফার্মেশন। ম্যাকডি যখন শুন্য লাইন ক্রস করবে, তখন সেটা বুল এবং বিয়ারদের শক্তি দেখায়। ম্যাকডি-হিস্টোগ্রাম যখন ০ এর ওপরে উঠবে তখন বাই করবেন। ম্যাকডি-হিস্টোগ্রাম যখন ০ এর নিচে নামবে তখন সেল করবেন। যদিও মনে রাখবেন, এধরনের সিগন্যাল পূর্বেরগুলোর চেয়ে দুর্বল।৪. ডাইভারজেন্স। প্রাইস যদি বাড়ে এবং ম্যাকডি যদি পড়তে থাকে, তাহলে তারমানে হচ্ছে যে প্রাইসের অগ্রগতি ইনডিকেটর দ্বারা নিশ্চিত হয়নি এবং র‍্যালির সমাপ্তি হতে যাচ্ছে। পক্ষান্তরে, প্রাইস যদি পড়তে থাকে আর ম্যাকডি যদি বাড়তে থাকে, তাহলে খুব শীঘ্রই বুলদের পালা আসবে।

টিপস

• হিস্টোগ্রাম এবং সিগন্যাল লাইনের মধ্যের ক্রসওভার হচ্ছে ম্যাকডির সবচেয়ে ভালো সিগন্যাল।

• প্রাইস এবং ম্যাকডির মধ্যে ডাইভারজেন্স খোজার চেষ্টা করুনঃ এটা আসন্ন কারেকশনের ভালো একটি লক্ষন।

ম্যাকডির সুবিধাসমূহঃ

• ম্যাকডি ট্রেন্ডিং এবং রেঞ্জিং দুই মার্কেটেই ব্যাবহার করা যায়।

• আপনি যদি ম্যাকডি বুঝে থাকেন, তাহলে আপনার জন্য এটা বোঝা সহজ হয়ে যাবে যে অন্যান্য ইনডিকেটর কীভাবে কাজ করেঃ নীতিগুলো প্রায় একই ধরনের।

ম্যাকডির অসুবিধাসমূহঃ

• এই ইনডিকেটর প্রাইস চার্টের পেছনে ঘরাফেরা করে, তাই দেরীতে সিগন্যাল দেয় এবং মার্কেটের শক্তিশালী মুভকে অনুসরন করে না।

উপসংহারম্যাকডি চার্টে থাকাটা ভালো কারন এটা ট্রেন্ড এবং মোমেন্টাম দুটোই পরিমাপ করে। এটা ট্রেডিং সিস্টেমের শক্তিশালী একটি অংশ হতে পারে, যদিও আমরা শুধু এই ইনডিকেটরের ভিত্তিতে ট্রেডের সিদ্ধান্ত নেয়ার পরামর্শ প্রদান করি না।

MA3.png

টেকনিক্যাল ইনডিকেটর সম্পর্কে আমরা কি শিখলাম

• টেকনিক্যাল ইনডিকেটরের সুবিধা এবং অসুবিধা দুটোই রয়েছে

• একটি টেকনিক্যাল ইনডিকেটর আপনাকে ভালো ট্রেডিং সিগন্যাল প্রদান করবে না। আপনাকে ট্রেডের জন ২-৪ টি ইনডিকেটর ব্যাবহার করতে হবে।

অনুরূপ

লোকাল পেমেন্ট সিস্টেম দিয়ে ডিপোজিট করুন

কলব্যাক

ম্যানেজার শীঘ্রই ফোন দেবে।

নম্বর পরিবর্তন করুন

আবেদন গ্রহন হয়েছে

ম্যানেজার শীঘ্রই ফোন দেবে।

অভ্যান্তরীন ত্রুটি দেখা দিয়েছে। অনুগ্রহ করে কিছুক্ষণ পরে আবার চেষ্টা করুন

নতুনদের জন্য ফরেক্স বই

ট্রেডিং শুরু করতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিসসমূহ
আপনার ই-মেইল দিন, আর আমরা আপনাকে ফ্রি ফরেক্স গাইডবুক প্রেরন করবো

ধন্যবাদ!

আমরা আপনার ই-মেইলে বিশেষ একটি লিংক প্রেরন করেছি।
সেই লিংকে ক্লিক করে ইমেইল নিশ্চিত করুন আর নতুনদের জন্য ফ্রি ফরেক্স গাইডবুক নিয়ে নিন।

আপনি পুরনো ভার্সনের ব্রাউজার ব্যাবহার করছেন।

লেটেস্ট ভার্সনে আপডেট করুন অথবা অন্য একটি ব্যাবহার করুন সুরক্ষিত, আরো সুবিধাজন এবং ফলদায়ক ট্রেডের অভিজ্ঞতার জন্য।

Safari Chrome Firefox Opera